Breaking News

এমন কষ্টকর বেদনাদায়ক ঘটনা খুব কম জনের সাথে ঘটে , মেয়েটি জন্ম নেওয়ার পরে যা ঘটলো

সুখ দুঃখের কোন নিশ্চয়তা নেই। ক্ষণে ক্ষণে মানুষের জীবনে সুখ আসে, আবার হঠাৎ করে ভেঙে পড়ে দুঃখের পাহাড়। এবার রাজস্থানের রাজসমন্দ জেলার রেলমাগরা এলাকায় বসবাসকারী এই পরিবারটিকে ধরুন।

9 দিন আগে এখানে কন্যা সন্তান জন্মের পর থেকে বাড়িতে আনন্দের পরিবেশ ছিল, কিন্তু এখন একইসঙ্গে একেবারে তিনজনের মৃ_ত্যু ঘটে। এই ঘটনায় শুধু পরিবার নয়, গোটা গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আসলে, অমরপুরার বাসিন্দা দেবীলাল গাদরির বাবা, প্রতাপ এর শারীরিক অবস্থা খারাপ ছিল। এ প্রসঙ্গে বাবার চিকিৎসার জন্য 10 দিন আগে জয়পুরে গিয়েছিলেন দেবীলাল। মঙ্গলবার চিকিৎসা শেষে শনিবার একটি গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি।

এখানকার ভিলওয়ারা জেলার থানার রাইলা এলাকায় মধ্যরাতে একটি গাড়ির সঙ্গে তার গাড়ির ধা_ক্কা লাগে সং_ঘ_র্ষ এতটাই মা_রা_ত্ম_ক ছিল গাড়িতে থাকা চারজনের মৃ_ত্যু হয়।

বুধবার সন্ধ্যায় বাবা-ছেলের লা_শ বাড়িতে পৌঁছালে সবার চোখ ভিজে ওঠে। একই পরিবারের তিন জনের লা_শের বে_দ_না_দা_য়_ক দৃশ্য দেখে সেখানে উপস্থিত সকলের হৃদয় কেঁপে ওঠে।

গোটা গ্রাম তাদের বিদায় জানাতে এসেছিল। পরিবারের সদস্যদের অবস্থা খুবই খারাপ। সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হলো বাবা এবং ঠাকুরদাদা-ঠাকুমাও সন্তানের মুখ দেখেননি। তারা যখন জয়পুরে চিকিৎসা করাচ্ছিলেন তখন তাদের ঘরে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়।

কন্যা সন্তানের খবর শুনে সবাই খুব খুশি হয়। প্রত্যেকেরই বাড়িতে পৌঁছে মেয়েকে কোলে নেওয়ার আগ্রহ ছিল, কিন্তু দু_র্ভা_গ্য_ব_শ_ত তাদের মৃ_ত্যুর সাথে তা মিশে যায়। পরিবারের তিন সদস্যের মর্মার্থ ঘটনা গোটা গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

লোকজন তাদের দোকানপাট বন্ধ করে রেখেছিল। কারো বাড়িতে খাবার পর্যন্ত রান্না হয়নি। সবাই শুধু কেঁদে যাচ্ছিল। শেষ সময়ে বাড়ির বড় ছেলে কিশানলাল বাবা-মা, ছোট ভাই এর মু_খা_গ্নি করেন।

এই দুঃখজনক ঘটনাটা যে শুনেছে সেও কেঁদেছে মানুষ এখন ভগবানকে জিজ্ঞেস করছে, এ কেমন লীলা একজন বাবা ম_রা_র আগে তার মেয়ের মুখও দেখতে পারলো না।

About Web Desk

Check Also

১৯০ কোটি টাকা লটারীতে জিতলেন এই মহিলা! কিন্তু তিনি না জেনে টিকিট সহ জামা ওয়াশিং মেশিনে ঢুকিয়ে ফেলে, তারপর যা হলো

লটারি খেলাটিও একটি চমৎকার খেলা। ভাগ্য সহায় থাকলে যে কেউ মাটি থেকে আকাশে, আবার আকাশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.