Breaking News

তুর্কী থেকে ভালোবাসার টানে ছুটে এসে বিয়ে করে ভালোবাসার নজীর গড়লেন এই বিদেশিনী

ভালোবাসা এমন একটি শব্দ, যেটিকে সীমারেখায় আবদ্ধ করা যায় না। হ্যাঁ, এই শব্দটি লিখতে যতটা ছোট লাগে, এটির তথ্য মাহাত্ম্য ততই। ভালোবাসার কোন সীমানা নেই এবং কোন ধর্ম নেই। আসুন আমরা বলি যে, এই বিশ্বাস আরও দৃঢ় হয়েছে এবং এক তুর্কি মহিল অন্ধপ্রদেশের গুন্টুরে এক ভারতীয় পুরুষকে বিয়ে করেছেন।

তাও সনাতন পদ্ধতিতে। এটি লক্ষনীয় যে, একটি মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে অন্ধপ্রদেশের মধু একটি কাজের প্রকল্পে 2016 সালের গিজেম নামে একটি মেয়ের সাথে দেখা করেন এবং প্রথম দর্শনেই তাদের বন্ধুত্ব হয়ে যায়। তারপর তাদের বন্ধুত্ব প্রেমে পরিণত হয়।

তারপর দুজনেই নিজেদের ঘর বাঁধার কথা ভাবেন এবং দুজনে বিয়ে করে ফেলেন। আপনাদের বলে রাখি যে, আমরা স্বাভাবিক পরিবেশে যেমন দেখি, শুরুতে প্রেমের বিয়ের জন্য পরিবারের সদস্যরা সহজভাবে মেনে নেন না, মধু ও গিজেমের গল্পেও তেমন কিছু ঘটেছে।

কিন্তু অবশেষে তারা একসাথে হয় এবং তাদের পিতা-মাতার অনুমোদন পাওয়ার পরে এই দম্পতি 2019 সালে বাগদান করেন। একই সময় বাগদানের পর 2020 সালে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠানে হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু কোভিডের কারণে তারা প্রভাবিত হন।

এমন পরিস্থিতিতে, 2021 সালের জুলাই মাসে তুর্কি ঐতিহ্য মেনে তুরস্কে বিয়ে করেনি দম্পতি। তারপর তারা ভারতে একটি ঐতিহ্যবাহী তেলুগু অনুষ্ঠান করেন। যেখানে গিজেম একটি সুন্দর শাড়ি পরেছিলেন ও আচার-অনুষ্ঠান সম্পাদন করেছিলেন।

একটি সাক্ষাৎকারে গিজেম বলেছিলেন, যে কিভাবে তার পরিবার ভারতীয় সংস্কৃতিকে ভালবাসে এবং কীভাবে তিনি তার স্বামীর পরিবার এবং তার পরিবারকে ভালোবাসেন।আত্মীয়দের সাথে আরো ভালো যোগাযোগ করতে বর্তমানে তেলেগু শিখছেন তিনি ।

শুধু তাই নয় আপনাকে জানিয়ে রাখি যে, একই রকম একটি ঘটনা সম্প্রতি বিহারের বেগুসারাইতে ঘটেছে। একজন ফরাসি মহিলা একজন ভারতীয় পুরুষকে বিয়ে করেছেন এবং তাদের আন্তঃধর্মীয় বিয়ের গল্পও ভাইরাল হয়েছিল।

About Web Desk

Check Also

১৯০ কোটি টাকা লটারীতে জিতলেন এই মহিলা! কিন্তু তিনি না জেনে টিকিট সহ জামা ওয়াশিং মেশিনে ঢুকিয়ে ফেলে, তারপর যা হলো

লটারি খেলাটিও একটি চমৎকার খেলা। ভাগ্য সহায় থাকলে যে কেউ মাটি থেকে আকাশে, আবার আকাশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.