Breaking News

সহজে পাওয়া যায় এমন বজ্র পদার্থের মাধ্যমে তৈরি করে ফেললেন ঘর, এক অভিনব উপায়ে পরিবেশ বান্ধব হওয়ার উপায় বাতলালেন এই ইঞ্জিনিয়ার

বেশিরভাগ সময় গ্রাম থেকে বেরিয়ে মানুষ শহরে চলে যায়। শহরের সুবিধা ভোগ করার জন্য তারা এই পদক্ষেপ নেয়। যারা প্রথম থেকেই শহরে থাকেন তারা তো গ্রামের দিকে ফিরেও তাকাতে চান না। অবশ্য এক্ষেত্রে কিছু ব্যতিক্রমও আছে। আজ আমরা আপনাদের এমনই এক ব্যতিক্রম মানুষের কথা বলব।

ইনি হলেন নরেন্দ্র পিতল। 57 বছর বয়সী এই ব্যক্তি মুম্বাই ও পুনের মত বড় শহরে থাকার পরেও প্রকৃতি প্রেমের জন্য শহর ছেড়ে বর্তমানে গ্রামে বসতি স্থাপন করেছেন। নরেন্দ্র পিতল মুম্বাইয়ের কাছে বিরার নামে একটি গ্রামের সাথে সম্পর্কযুক্ত। কিন্তু তিনি মুম্বাইতে বড় হয়েছেন। আবার কাজের সূত্রে 1990 থেকে 2012 পর্যন্ত পুনেতে থাকতে হয়েছে তাকে।

নরেন্দ্র পিতল একজন ইঞ্জিনিয়ার। তিনি বেশকিছু সময় কনসালটেন্সির কাজও করেছেন। কিন্তু নিজের কাজে সন্তুষ্ট ছিলেন না তিনি। কাজের ফাঁকে চাষাবাদ ও ইকোলজির মতো বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করতেন। ইকোলজির অনেক বই পড়ার পর অনুভব করেন যে জীবন-যাপন তিনি করছেন তা সঠিক নয়।

পুনেতে থাকাকালীন 2004 সালে তিনি ইকোলজির উপর একটি কোর্স করেন। এই কোর্স তার জীবনের টার্নিং পয়েন্ট ছিল বলে তিনি জানান। ছোট থেকেই তার ট্র্যাকিংয়ের সখ। ছুটিছাটাতে তিনি আশেপাশের গ্রামে সময় কাটাতে চলে যেতেন। নিজের জীবনে পরিবর্তন আনার কথা সব সময় তিনি চিন্তা করতেন। এমন সময় তার এক বন্ধু জানান লোনাবলার কাছে সিলিম্ব গ্রামে কুড়ি একর জমি আছে তার। এই শুনে তিনি অবাক হন যে এত জমি থাকার পরেও তার বন্ধু শহরে একটি ছোট চাকরি করতো।

তিনি সেই জমিতে একটি এগ্রো ট্যুরিজম বানানোর কথা ভাবেন। সেই জমিতে তার বন্ধুর জন্য তিনি এগ্রো ট্যুরিজমের কাজ করান এবং এর পাশেই নিজের জন্য একটি ইকো ফ্রেন্ডলি বাড়ি বানান।

About Web Desk

Check Also

১৯০ কোটি টাকা লটারীতে জিতলেন এই মহিলা! কিন্তু তিনি না জেনে টিকিট সহ জামা ওয়াশিং মেশিনে ঢুকিয়ে ফেলে, তারপর যা হলো

লটারি খেলাটিও একটি চমৎকার খেলা। ভাগ্য সহায় থাকলে যে কেউ মাটি থেকে আকাশে, আবার আকাশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.