Breaking News

এই লোভ করতে গিয়ে মাথা খারাপ হয়ে গেছিল মায়ের, 10 বছরের ছেলেকে মে_রে ফেলার ষড়যন্ত্র করেছিল মা নিজেই… জেনেনিন কি হয়েছিল…

আমরা মাকে ঈশ্বরের চেয়ে বেশি বিবেচনা করি। একজন মায়ের কাছে তার সন্তান তার নিজের জীবনের থেকেও প্রিয়। সন্তানের সুখ ও নিরাপত্তার জন্য সে যে কোন মাত্রায় যেতে পারে এবং এমনকি যদি তার শিশু আ_ঘা_ত পায় তাহলে তার থেকে তার মা বেশি কষ্ট পায়। কিন্তু আজ আমরা আপনাকে এমন একজন মায়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে যাচ্ছি যে তার নিজের 10 বছরের ছেলেকে নির্মমভাবে হ_ত্যা করেছে।

মাকে যখন শিশুটিকে হ_ত্যার পেছনে কারণ জিজ্ঞাসা করা হলো তা শুনে সবাই হতবাক হয়ে যায়। কেউ বিশ্বাস করতে পারেনি যে একজন মা তার নিরীহ ছেলের সাথে এমন করতে পারে। আসলে জুলি নামের এই কলিযুগে মা থাকেন মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়র জেলার বাগদা উড়াইয়াতে। তিনি তার 10 বছরের ছেলে নিতিন মৃধার সৎ মা। শিশুটির আসল মা সীমা কিছুদিন আগে মা_রা গিয়েছেন এবং

এমন পরিস্থিতিতে সন্তানের বাবা 2019 সালের জুলি নামে 32 বছর বয়সী একটি মহিলাকে বিয়ে করেন এবং বিয়ের পর সবকিছু ঠিকঠাক চলছিল কিন্তু 2 সেপ্টেম্বর শিশুর স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটে। বাবা তাড়াতাড়ি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায় কিন্তু শিশুটি সেখানে 2 সেপ্টেম্বর রাতেই যন্ত্রণায় কাতরাতে কাতরাতে মা_রা যায়। সন্তানের এই অবস্থা সম্পর্কে মাকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বিভিন্ন কথা বলে অজুহাত দিতে শুরু করে।

কখনো কখনো সে বলতো যে সে ভুল করে বিষ খেয়েছে আবার কখনো কখনো বলছে যে তাকে সাপে কামড়েছে। তার কথা শুনে পুলিশের হজম হয়নি তারা তাকে সন্দেহ করা শুরু করে এবং শিশুটির ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে মৃ_ত্যুর কারণ বিষক্রিয়া হিসেবে দেওয়া হয়েছিল এবং এরপর পুলিশ মাকে কঠোরভাবে জেরা করা শুরু করে। তিনি পুলিশকে বলেন,”আমি আমার 10 বছরের ছেলেকে বিষ খাইয়ে মে_রে ফেলেছি।”

যখন সৎ মাকে ছেলের হ_ত্যা_র কারণ জিজ্ঞাসা করা হয় তখন সবাই স্তব্ধ হয়ে যায় এবং তিনি বলেন যে,”আমি নিতিনের জীবনবীমা সম্পর্কে জানতে পেরেছিলাম।” তার ছেলের একটি 18 লাখ টাকার জীবন বীমা ছিল এবং এই টাকা সে প্রথম মায়ের মৃ_ত্যু_র পর জীবনবীমা দাবির আকারে পেয়েছিলেন এবং শিশুটির মা দুর্ঘটনায় মা_রা যান।

তার জীবনবীমা ছিল এবং তার সমস্ত টাকা ছেলে নিতিনকে দেওয়া হয়েছিল কিন্তু সৎ মা সেই টাকা হাতিয়ে নিতে চেয়েছিলেন। শুধুই টাকার লোভে তিনি তার 10 বছরের নিরীহ ছেলেকে বিষ দিয়ে মে_রে ফেলে। মহিলাটি এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন এবং তার উপর সকল প্রাসঙ্গিক ধারা চাপিয়া আদালতে পেশ করা হবে এবং আশা করা হচ্ছে আদালতে তার নিষ্ঠুরতাকে কঠোরতম শাস্তি দেবে। যাই হোক, এ বিষয়ে আপনার মতামত কি দয়া করে মন্তব্য করে আমাদের জানান।

About Web Desk

Check Also

দেশের জন্য শহীদ হয়েছেন ছেলে, বাবার চোখে জল নিয়ে শেষবারের মতো স্যালুট জানালেন ছেলেকে…

উত্তরাখণ্ডের বাগেশ্বরে অবস্থিত ত্রিশূল পর্বতে পর্বতারোহণ অভিযানের সময় নৌবাহিনী লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রজনীকান্ত যাদব একটি হিমবাহের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *