Breaking News

মাত্র 14 বছর বয়সে কে.বি.সি.-তে এক কোটি টাকা জিতে ছিলেন আজ তিনি আই.পি.এস অফিসার..

ভারতের সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় টেলিভিশন শো হল ‘কন বানেগা ক্রোড়পতি’ যার মাধ্যমে অনেকেই কোটিপতি হয়েছেন। 2001 সালে রবি মোহন সায়নী মাত্র 14 বছর বয়সে 15 টি প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে এক কোটি টাকা জিতে ছিলেন। এর পরে রবি মোহন সায়নী ইউ.পি.এস.সি সিভিল সার্ভিসে পাস করেন এবং আই.পি.এস অফিসার হন‌। রবি মোহন বর্তমানে গুজরাটের পোর বন্দরে পুলিশ সুপার হিসেবে কাজ করছেন। আসুন জেনে নেই ‘কন বানেগা ক্রোড়পতি’ শো থেকে আই.পি.এস অফিসার হওয়া পর্যন্ত রবি সায়নীর যাত্রা কেমন ছিল।

রবি যখন দশম শ্রেণীতে পড়েন তখন তিনি জনপ্রিয় শো ‘কন বনেগা ক্রোড়পতি’র জুনিয়র এ অংশগ্রহণ করেন এবং সকল প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে এক কোটি টাকা যেতেন। একটি সাক্ষাৎকারে রবি বলেছিলেন যে,”তিনি বলিউডের মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চনের সাথে দেখা করতে চান তাই তিনি কে.বি.সি জুনিয়র-এ তার ভাগ্য চেষ্টা করেছিলেন এবং তিনি সেখানে জিতেছিলেন।” আসুন আমরা আপনাকে বলি রবি সায়নী এম.বি.বি.এস এবং তিনি তার পুরো একাডেমিক ক্যারিয়ারে শীর্ষে ছিলেন।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো যে রবি শুধুমাত্র স্ব-অধ্যয়নের মাধ্যমে সিভিল সার্ভিসে সাফল্য অর্জন করেছেন এবং একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন,”আমার স্কুলে পড়ার পর আমি জয়পুরের মহাত্মা গান্ধী মেডিকেল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস করেছি। আমি এম.বি.বি.এস এর পর ইন্টার্নশিপ করেছিলাম সেই সময় আমি ইউ.পি.এস.সি পাস করেছি। আমার বাবা নৌবাহিনীতে ছিলেন এবং আমি তার দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দিয়েছি।

এরপর তিনি ভারতীয় ডাক ও আর্থিক পরিষেবার জন্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু তখনো পর্যন্ত রবি সায়নী হাল ছাড়েননি। তিনি আবার ইউ.পি.এস.সি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং তিনি 461 তম সর্বভারতীয় rank নিয়ে ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। আপনার তথ্যের জন্য আমরা আপনাকে বলি যে রবি মোহন সায়নী মূলত রাজস্থানের বাসিন্দা এবং তার বাবা একজন অবসরপ্রাপ্ত নৌবাহিনীর কর্মকর্তা।

বাবার বিভিন্ন জায়গায় পোস্টিং থাকায় রবি মোহন সায়নী অন্ধপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমে নেভাল পাবলিক স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ার পর বিজয়পুরের মহাত্মা গান্ধী মেডিকেল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস করেন। 2014 সালে তিনি তৃতীয়বার ইউ.পি.এস.সি পরীক্ষা দেন এবং সর্বভারতীয় 461 তম স্থান অর্জন করে অফিসার হন এবং বর্তমানে গুজরাটের পোর বন্দরে সুপার ইনটেনডেন্ট এস.পি পদে রয়েছেন তিনি।

About Web Desk

Check Also

“পুষ্পা” ফিল্মের রক্ত চন্দন এর দাম জানেন কত? বিলুপ্ত এই চন্দন কীভাবে এল ফিল্মের সেটে? জানলে আপনিও চমকে যাবেন

সম্প্রতি রিলিজ হয়েছে আল্লু আর্জুনের ফিল্ম “পুষ্পা”। এই ফিল্ম রক্ত চন্দনের কাঠ নিয়ে তৈরি। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.