Breaking News

ম’দ ও ড্রা’গ’স এর নে’শায় নিজের স্টারডম হারিয়ে ফেলেছিলেন মনীষা কৈরালা, আস্তে আস্তে নিজেকে এই ভাবেই সামলেছেন

নব্বইয়ের দশকে মনীষা কৈরালা কে বলিউডের অন্যতম বিখ্যাত অভিনেত্রী মনে করা হতো। 16 ই আগস্ট 1970 সালে নেপালের কাঠমান্ডু শহরে জন্মগ্রহণ করেন মনীষা কৈরালা। মনীষা কৈরালা নেপালের রাজবংশের সাথে সম্পর্কযুক্ত। যদিও তিনি ঠাকুমার সাথে ছোট থেকেই বারাণসীতে থেকেছেন। মনীষা বলিউডকে অনেক হিট ফিল্ম এর পাশাপাশি কিছু ফ্লপ ফিল্মও দিয়েছেন। কেরিয়ারের এই ওঠানামা এক পর্যায়ে তিনি সহ্য করতে না পেরে ড্রাগস ও মদের নেশায় ডুবে যান।

এর ফলস্বরূপ খুব দ্রুতই তিনি তার স্টারডম হারিয়ে ফেলেন এবং ক্যান্সারের শিকার হন। ওভারিয়ান ক্যান্সারের চিকিৎসা করাতে তিনি প্রথমে কাঠমান্ডু যান। এরপর মুম্বাইতেও বেশ কিছুদিন থাকেন। শেষে কোনো উপায় না পেয়ে আমেরিকায় চলে যান। ক্যান্সারের সাথে প্রায় চার বছর ধরে যুদ্ধ করার পর তিনি জিতে ফিরে আসেন। বর্তমানে তিনি 51 বছরের। কিন্তু তার ফ্যাশন সেন্স ও লুকস দেখলে বয়সের হিসেব করা যাবে না। সোশ্যাল মিডিয়াতে মাঝে মাঝেই ছবি পোস্ট করেন তিনি।

সুভাষ ঘাইয়ের “সওদাগার” ফিল্ম থেকে তিনি বলিউডে ডেবিউ করেন তিনি। এরপর তিনি “এ লাভ স্টরি”, “ইয়ালগার”, “অনমোল”, “মিলন”, “ইনসানিয়াত কে দেবতা” র মতো ফ্লপ ফিল্ম করেন। এরপর 1994 সালে “1942: এ লাভ স্টোরি” সিনেমাটি তার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট নিয়ে আসে। এরপর তিনি একে একে “ক্রিমিনাল”, “বোম্বে”, “আকেলে হাম আকেলে তুম”, “দুশমন”, “অগ্নিসাক্ষী”, “মন” এর মত হিট ফিল্ম করেন। বহু সময় ধরে তিনি ফিল্মি দুনিয়া থেকে দূরে আছেন। শেষবার তাকে নেটফ্লিক্সের “মস্কা” সিনেমায় দেখা গেছে।।

About Web Desk

Check Also

দিব্যা ভারতীর জীবনে ছিল অনেক গোপন কাহিনী, জেনেনিন কি হয়েছিল 5 এপ্রিল 1993 এর রাতে

অভিনেত্রী দিব্যা ভারতীর নাম শুনলেই এক মিষ্টি মুখের মেয়ের কথা মনে পড়ে। খুব অল্প বয়সেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *