Breaking News

‘ম-দ খাওয়া, বাড়িতে মিনি বার রাখা, ন-গ্ন ছবি তোলা তো অপরাধ নয়’ ? পরীমনির হয়ে সাফাই গাইলেন তসলিমা

সম্প্রতি বাংলাদেশের বিখ্যাত নায়িকা পরীমনি কে গ্রেফতার করেছে র্যাপিড। এই নিয়ে সবর হয়েছেন বাংলাদেশের বিখ্যাত নারীবাদী লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তসলিমা নাসরিন জানতে চেয়েছেন ঠিক কি অপরাধে গ্রেফতার করা হয়েছে পরীমনিকে? জানা যাচ্ছে পরিমনির বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পাওয়া গেছে বিপুল পরিমাণ ম’দ, তল্লাশি চালিয়েছে বাংলাদেশের বিখ্যাত র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান। এরপরই আটক করা হয় পরীমনিকে। বাড়িতে তল্লাশির পর সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভ এসেছিলেন পরীমনি।

সংবাদমাধ্যম থেকে জানা গেছে 30 টির বেশী ম’দে’র বোতল পাওয়া গেছে পরীমনির বাড়ি থেকে। ম’দ খাওয়ার ও ম’দ রাখার পারমিট ইতিমধ্যেই শেষ হয়ে গেছে পরীমনির। এছাড়াও পাওয়া গেছে এল’এস’ডি নে’শা করার জন্য কিছু ব্ল’টিং পেপার। জানা যাচ্ছে 3 ঘণ্টার বেশি সময় ধরে পরীমনির বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়েছে। পরীমনির পাশাপাশি আটক করা হয়েছে পরীমনির গাড়ির ড্রাইভার ও বাড়িতে কাজ করা এক কর্মীকে।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন নারীবাদী লেখিকা তসলিমা নাসরিন। এদিন তিনি বাংলাদেশের মেয়েদের অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি আরও বলেছেন ঠিক কী অপরাধে পরীমনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে তা তিনি জানেন না। তসলিমা নাসরিন তার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে টুইট করেছেন- পরীমনি গ্রাম থেকে ঢাকায় এসে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে নাম করেছেন। তার বাড়িতে তিনি ম’দ রেখেছেন, তার বাড়িতে তিনি ছোট বা’র তৈরি করেছেন। তার বাড়িতে মাঝে মাঝেই বন্ধু-বান্ধবদের সাথে পার্টি হত।

পরীমনিকে মডেলিংয়ে কাজ পেতে যে সাহায্য করেছিলেন তিনি পরীমনির বাড়িতে এসে মাঝেমধ্যে ম’দ্য’পা’ন করতেন। পরীমনির ম’দ খাওয়া ও ম’দ রাখার লাইসেন্স শেষ হয়ে গিয়েছিল কিন্তু তিনি লাইসেন্স রিনিউ করাতে পারেননি। এইসব পয়েন্ট মেনশন করে তসলিমা নাসরিন জানান এগুলো এমন কোনো বড় অপরাধ নয় যে তার জন্য পরীমনিকে জেলহাজতে রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন যে পরীমনি এক দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে এসেছেন। তিনি কারো সাহায্য না নিয়ে এবং নিজের ট্যালেন্ট এর ওপর নির্ভর করে মডেলিং ও ফিল্মে ক্যারিয়ার তৈরি করেছেন।

কোনো পুরুষ কাজের জায়গায় সাফল্য পেলে তার পরিশ্রমকে বাহবা দেওয়া হয়, সেখানেই কোনো নারী যদি নিজের কাজে সাফল্য পায় তাহলে এটাই ভেবে নেয়া হয় যে সে কারো সাথে শুয়ে তারপর সফলতা পেয়েছে। একবিংশ শতাব্দিতে এসে এই ধরনের মন্তব্য বড়ই হাস্যকর এবং অপমানজনক। তসলিমা নাসরিন প্রশ্ন করেছেন পরীমনি কি কাউকে জোর করে মদ খাইয়ে ছিলেন বা কাউকে খুন করেছিলেন? তাহলে কিসের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়? এইসবের প্রশ্নর উত্তর তিনি দাবি করেছেন র্যাবের কাছ থেকে। এই প্রসঙ্গে আপনাদের মূল্যবান মতামত আমাদের জানাতে পারেন।।

About Web Desk

Check Also

“পুষ্পা” ফিল্মের রক্ত চন্দন এর দাম জানেন কত? বিলুপ্ত এই চন্দন কীভাবে এল ফিল্মের সেটে? জানলে আপনিও চমকে যাবেন

সম্প্রতি রিলিজ হয়েছে আল্লু আর্জুনের ফিল্ম “পুষ্পা”। এই ফিল্ম রক্ত চন্দনের কাঠ নিয়ে তৈরি। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.