Breaking News

বাবা ছিলেন বাস কন্ডাকটর, ছেলে কোটি কোটি টাকার মালিক, কেমন ছিল রাজ কুন্দ্রার ছোটবেলা জেনেনিন বিস্তারিত

সম্প্রতি শিল্পা শেট্টির স্বামী রাজ কুন্দ্রার গ্রেফতার বহু মানুষকে অবাক করেছে। রাজ কুন্দ্রা হিরোইনদের দিয়ে জোর করে প’র্নো’গ্রা’ফিতে কাজ করাতেন, সেই অপরাধেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিল্পা শেট্টির সাথে বিয়ের পরই রাজ কুন্দ্রা মূলত লাইমলাইটে এসেছেন। আমরা ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রাকে দেখেছি, কিন্তু রাজ কুন্দ্রার জীবন প্রথম থেকেই এমন ছিল না। ছোটোবেলায় ভীষণ অভাবেই তার জীবন কেটেছে। তার বাবা ছিলেন বাস কন্ডাক্টর এবং মা একটি কারখানায় কাজ করতেন।

ছোটো থেকে অভাব-অনটন দেখে বড় হওয়ায় রাজ কুন্দ্রা আঠারো বছর বয়স থেকেই পড়াশোনা ছেড়ে কাজে নেমে যান। বিভিন্ন ধরনের কাজ করেছেন তিনি, আবার চাকরিও করেছেন। কিন্তু বরাবরই তার ব্যবসার প্রতি ঝোঁক ছিল। তাই তিনি নেপাল থেকে পশমিনা শাল এনে ভারতে বিক্রি করার ব্যবসা শুরু করেন। এরপর তিনি আরো ভালো ভাবে ব্যবসা বোঝার চেষ্টা করেন। ব্যবসায় নাম-যশ হওয়ার পর তিনি বিনোদন জগতে আসেন।

এখান থেকেই তার সাথে আলাপ হয় শিল্পা শেট্টির। আলাপ হওয়ার পর তারা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। যদিও শিল্পা শেট্টি রাজ কুন্দ্রার প্রথম স্ত্রী নন। রাজ কুন্দ্রার প্রথম স্ত্রীর নাম কবিতা। তিনি তার প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে বিয়ে করেন শিল্পা শেট্টিকে। তারা দুজনেই সোশ্যাল মিডিয়াতে ভীষণভাবেই একটিভ। টিকটক ব্যান হওয়ার আগে তাদের নিয়মিত টিকটকে ভিডিও পোস্ট করতে দেখা যেত। এখন তারা ইনস্টাগ্রাম রিলস্-এ নিয়মিত ভিডিও পোস্ট করেন। তাদের সেই সমস্ত ভিডিও দেখে খুব সুখী দম্পতি বলেই মনে হতো।

কিন্তু রাজ কুন্দ্রা গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকেই প্রশ্ন উঠছে অল্প সময়ে বেশি লাভ করার জন্যই কি তিনি এই পথ বেছে নিলেন? রাজ কুন্দ্রা একবার এক ইন্টারভিউতে জানিয়েছিলেন তিনি ছোট থেকে অভাব-অনটন দেখে বড় হয়েছেন বলে এখন দুই হাতে যেমন টাকা রোজগার করেন তেমনি দুই হাতে টাকা খরচও করেন। টাকা খরচ করার আগে তিনি ভেবে দেখেন না। শিল্পা শেট্টি ও রাজ কুন্দ্রা কে দেখে ভীষণ সুখী দম্পতি মনে হলেও শোনা যাচ্ছে রাজ বরাবরই টাকার পিছনেই দৌড়াতেন।।

About Web Desk

Check Also

সৌন্দর্যের দিক থেকে দীপিকা পাডুকোনকে হার মানাবে রণবীর সিং এর বোন।

বিখ্যাত অভিনেতা রণবীর সিং তার ভিন্ন স্টাইল এবং উজ্জ্বল অভিনয়ের জন্য পরিচিত এবং তিনি প্রায়ই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *