Breaking News

বাবা খবরের কাগজ বিক্রি করে মেয়েকে কোচিং দিতে পারেননি, কোচিং ছাড়াই সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে অফিসার হলেন মেয়ে!

যদি কোন কাজকে মন দিয়ে করা হয় তবে সেই কাজে সফলতা আসেই। এমন কোন কাজ নেই যা আমরা পরিশ্রমের দ্বারা লাভ করতে পারিনা। আজ আমরা এমনই একজনের কথা বলবো যে নিজের পরিশ্রমের দ্বারা সিভিল সার্ভিস অফিসার হয়ে দেখিয়েছেন। এই সিভিল সার্ভিস অফিসারের নাম শিবজিৎ ভারতী। তার বাবা বাড়ি বাড়ি খবরের কাগজ বিলি করার কাজ করতেন। তাদের আর্থিক অবস্থা ভীষণই খারাপ ছিল। কিন্তু এইসব সমস্যা তাকে হার মানতে দেয়নি।

তিনি কঠোর পরিশ্রম করে “ইউপিএসসি”র পড়া করছিলেন। এরপর তিনি সিভিল সার্ভিসের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে উপজেলা অধিকারীর পদে নিযুক্ত হন। ভারতী জানান তার বাবা বছরে মাত্র চার দিন ছুটি পেতেন। কঠোর পরিশ্রম করে তিনি তাদের পড়াশোনা চালাতেন। তিনি তাদের পড়াশোনায় কোন খামতি থাকতে দেননি। তার মা সংসার খরচ চালাতে অঙ্গনবাড়ির কাজ করতেন। ভারতী তার গ্রামের স্কুল থেকেই পড়াশোনা করেন। এরপর তিনি গ্রাজুয়েশনের জন্য কলেজে ভর্তি হন।

তিনি জানান আর্থিক অসুবিধার কারণে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া খুবই সমস্যার ছিল তার পক্ষে। তাই তিনি নিজের পড়াশোনার খরচ ও বই কেনার টাকা জোগাড় করতে ছাত্র-ছাত্রী পড়াতেন। ভারতী ছোট থেকে আইএএস অফিসার হতে চেয়ে ছিলেন তাই তিনি “ইউপিএসসি”র প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেন। কিন্তু কোচিং সেন্টারগুলোর অত্যাধিক ফিসের কারণে তিনি বাড়ি থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেন। তার আত্মবিশ্বাস এতটাই বেশি ছিলো যে তিনি এই পরীক্ষায় পাশ করে যান।

তিনি জানান বই, ম্যাগাজিন, খবরের কাগজ এর পাশাপাশি ইউটিউব এর বিভিন্ন ভিডিও তাকে এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করেছে। মাত্র 26 বছর বয়সে তিনি উপজেলা অধিকারী পদে নিযুক্ত হন। তিনি জানান গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট হওয়ার পর তার পরিবারের থেকে বিয়ে করার জন্য চাপ আসতে থাকে। তার পরিবার চাইছিল তিনি যেন বিয়ে করে শ্বশুরবাড়ি চলে যান। কিন্তু তিনি তা চাননি।

“ইউপিএসসি” পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়া কালীন তিনি “হরিয়ানা সিভিল সার্ভিস” এর পরীক্ষার ফর্ম ফিলাপ করেন। যখন এই পরীক্ষার রেজাল্ট বের হয় জানা যায় মাত্র 48 জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। এই 48 জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে একজন ছিলেন শিবজিৎ ভারতী। ভারতীর এই সফলতা দেখে তার বাবা গুরনাম সৈনি ভীষন গর্ব অনুভব করেন। ভারতীর এই সফলতা সেই সব মেয়েদের জন্য অনুপ্রেরণা যারা বিয়ের প্রেসারে বা আর্থিক অবস্থার জন্য নিজেদের স্বপ্নকে বিসর্জন দিয়ে দেন। ভারতীর এই সফলতায় আমরা তাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।।

About Web Desk

Check Also

দেশের জন্য শহীদ হয়েছেন ছেলে, বাবার চোখে জল নিয়ে শেষবারের মতো স্যালুট জানালেন ছেলেকে…

উত্তরাখণ্ডের বাগেশ্বরে অবস্থিত ত্রিশূল পর্বতে পর্বতারোহণ অভিযানের সময় নৌবাহিনী লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রজনীকান্ত যাদব একটি হিমবাহের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *