Breaking News

মিমি পছন্দ করতেন যশকে, ভাগিয়ে নিয়ে রিলেশনে ঢুকেছিলেন নুসরাত

টলিউডের বিখ্যাত অভিনেত্রী নুসরাত খুব অল্প সময়েই নিজের সুনাম অর্জন করেছিলেন অভিনয়ের মাধ্যমে। তার অসাধারণ অভিনয় ও গ্ল্যামারই তাকে এই খেতাব এনে দিয়েছিল। অভিনেত্রী নুসরাত ও মিমির বন্ধুত্ব সবার জানা। একে অপরকে তারা বনু বলে ডাকতেন। রাজনীতিতে তাদের পা দেওয়া একই সাথে। রাজনৈতিক কোনো মিটিং হোক বা বন্ধুদের সাথে পার্টি কিংবা হোক কোনো সিনেমার প্রিমিয়ার সবেতেই তাদের দেখা যেত একসাথে।

নিজেদের জীবনের ছোট থেকে ছোট ব্যাপার একে অপরকে জানাতেন। কিন্তু বর্তমানে নুসরাত-নিখিলের বিবাহবিচ্ছেদ এবং নুসরাত-যশ এর প্রেম কাহিনী নিয়ে মুখ খুলছেন না মিমি। টলিপাড়ায় গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে নুসরাত আর নিখিলের বিবাহ বিচ্ছেদের পাশাপাশি নুসরাত আর মিমির বন্ধুত্ব বিচ্ছেদ হয়ে গেছে।

2019 সালে যখন তুরস্কে নুসরাত তার স্বামী নিখিল জৈন কে বিয়ে করেন তখন টলিউড থেকে একমাত্র আমন্ত্রণ ছিল মিমির। মিমি কেবলমাত্র নুসরাতের প্রিয় বান্ধবী ছিলেন না হয়ে উঠেছিলেন তার পরিবার। তাইতো সমস্ত কাজ ছেড়ে বন্ধুর বিয়েতে হাজির থাকার জন্য ছুটে গিয়েছিলেন সুদূর তুরস্কে মিমি। তাহলে আজ এমনকি হল যে বন্ধুর এই সময়ে পাশে নেই মিমি।

নিখিল জৈন জানিয়েছেন নুসরাতের বাচ্চার বাবা তিনি নন আবার শোনা যাচ্ছে নিখিল আর নুসরাতের বিবাহ বিচ্ছেদের পর নুসরাত বিয়ে করেছেন অভিনেতা যশ কে। কিন্তু এসবই কানাঘুষো আসল সত্য এখনও সামনে আসেনি। মিমি নাকি পছন্দ করতেন অভিনেতা যশ কে। অভিনেতা যশ এর সাথে মিমি কয়েকটি সিনেমা করেন এই সময়েই নাকি তার প্রতি মিমির মনে দানা বাঁধে ভালোবাসা।

এই কথা মিমি তার তৎকালীন প্রিয় বান্ধবী নুসরাতকে জানায়। তাহলে নুসরাত জানতেন মিমির যশ এর প্রতি ফিলিংস সম্পর্কে! এরপর নুসরাত যশের সাথে “ওয়ান” নামে একটি সিনেমাও করেন। কিন্তু সেই সময়ে তাদের মধ্যে তেমন কোন সম্পর্ক ছিল না। সূত্র অনুযায়ী “সেভেন” নামে একটি সিনেমা করার সময়ই তাদের মধ্যে সম্পর্ক শুরু হয়।

নুসরাত যশ এর সাথে ঘুরতে গিয়েছিলেন। ছিলেন একই হোটেলে। সেই হোটেল নিখিলের এক বন্ধুর হওয়ার কারণে নিখিল সবকিছু জানতে পারে। এরপরই শুরু হয় অশান্তি। নিখিল চলে যায় দিল্লি আর নুসরাত একা থেকে যায় তার কলকাতার ফ্ল্যাটে। অনেকে নুসরাতের ফ্ল্যাটে যশ কে বহুবার আসতেও দেখেছে। নুসরাত আর যশ এর প্রেম কাহিনী জানার পর থেকেই মিমি দূরত্ব সৃষ্টি করেছেন বন্ধু নুসরাতের থেকে।

তিনি কোনো ব্যাপারেই আর মুখ খুলছেন না। মিমির আর নুসরাতের বন্ধুত্বের ভাঙ্গন নিয়ে কানাঘুষা চললেও এবার নুসরাতের এক পোস্ট এই কানাঘুষো কে সত্য প্রমাণ করে। সেই পোষ্টের তাৎপর্য ছিল যে আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড একসময় আপনাকে সাহায্যের হাত এগিয়ে দেওয়ার বদলে পিছনে টেনে রাখবে। সেই সময় আপনাকে বুঝে নিতে হবে এই বন্ধুত্ব শেষ করাই শ্রেয়। তাহলে কি নুসরাত মিমির কথাই বললেন? আপনাদের কি মনে হয় জানান আমাদের।।

About Web Desk

Check Also

“পুষ্পা” ফিল্মের রক্ত চন্দন এর দাম জানেন কত? বিলুপ্ত এই চন্দন কীভাবে এল ফিল্মের সেটে? জানলে আপনিও চমকে যাবেন

সম্প্রতি রিলিজ হয়েছে আল্লু আর্জুনের ফিল্ম “পুষ্পা”। এই ফিল্ম রক্ত চন্দনের কাঠ নিয়ে তৈরি। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.