Breaking News

রাসমণি ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে পরিবারের সাথে সেলফি তুলে গেলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ছবি

বাংলা ধারাবাহিকের অতি জনপ্রিয় একটি সিরিয়াল রানী রাসমণি। ২০১৭ সাল থেকে পথ চলা শুরু এই সিরিয়ালটির। এই সিরিয়ালটি ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে রচিত। সিরিয়ালটির সাথে প্রথম থেকেই জড়িত দিতীপ্রিয়া। এই দিতীপ্রিয়াই সিরিয়ালটির প্রধান চরিত্র অর্থাৎ রানীমার ভূমিকায় অভিনয় করে। ছোটো রাসমণি থেকে বৃদ্ধা রানীমা পর্যন্ত তাঁর এই পথ চলা শেষের পথে।

রানীমা’র এবার অন্তিম যাত্রা শুরু। যদিও শোনা যাচ্ছে সিরিয়ালটি শেষ হবে না। শুধু শেষ হয়ে যাবে রানীমার যাত্রা। একজন উঠতি বয়সের মেয়ে হয়েও খুব সুন্দর ভাবে দিতীপ্রিয়া রানী রাসমণিকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছিল। এই কয় বছরে রানী রাসমণি সিরিয়ালটিতে বহু পুরোনো অভিনেতা, অভিনেত্রী বিদায় নিয়েছে আবার কিছু নতুন মুখ এসেছে।

তাঁরা প্রত্যেকেই রানীমা ওরফে দিতীপ্রিয়াকে মিস করবেন বলে জানিয়েছেন। সদা হাস্যময়ী মিষ্টি স্বভাবের দিতীপ্রিয়ারও তাই চোখে জল। তার অনবদ্য অভিনয় দর্শকদের মুগ্ধ করেছে। ঐতিহাসিক কাহিনি মতে এবার রানীমার অন্তর্ধানের পালা। মা ভবতারিণীর স্বপ্নাদেশ পেয়েই রানীমা তা বুঝে গেছেন। গতকালই দিতীপ্রিয়ার রানী রাসমণি রূপে ছিল শেষ অভিনয়।

দিতীপ্রিয়ার সাথে কাজ করা থেকে কাজের ফাঁকে আড্ডা সবই এবার থেকে মিস করবেন সহ অভিনেতা ও অভিনেত্রীরা। তাই রানীমার শেষ দিনের শুটিং -এ সবারই মন খারাপ। শেষ দিনের শুটিং -এ সবাই সেল্ফিও তুলেছেন, যা ভাইরাল হয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে অন্তিম শয্যায় রানীমা শুয়ে পোজ দিচ্ছেন আর তাঁর সাথে রামকৃষ্ণ চরিত্রের অভিনেতা সৌরভ দাস,

রানীমার পরিবারের বৌয়েরা ও অন্যান্য অভিনেতারা। ছবিটি শেয়ার করা হয় দিতীপ্রিয়ার ফ্যান ক্লাব থেকে। রানীমা চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে যেমন দিতীপ্রিয়া গুরুজনদের আশীর্বাদ পেয়েছে তেমনই পেয়েছে লক্ষাধিক ফ্যান। দিতীপ্রিয়ার রানীমা চরিত্রের অবসান ঘটলেও আমরা চাই তার আরও অভিনয় দেখতে অন্য কোনো চরিত্রে, অন্য কোনো পর্দায়। সব মিলিয়ে তার জন্য রইল আমাদের তরফ থেকে আগামী জীবনের শুভকামনা।।

About Web Desk

Check Also

বিস্ময়কর ঘটনা: ৪ হাত-পা ওয়ালা শিশু জন্ম নিতেই গ্রামে ঘটে গেলো এই ঘটনা!

প্রকৃতির এক অনন্য রূপ দেখা গেলো সোমবার বিহারের কাটিহার সদর হাসপাতালে। যেখানে চার হাত-পা বিশিষ্ট …

Leave a Reply

Your email address will not be published.