Breaking News

বয়স 50 ক্রস করলেও এই অভিনেত্রী দের এখনো ইয়ং লাগে, এদের গ্ল্যামারে হার মানবে নতুন অভিনেত্রীরা।

স্টাইল হোক বা ফ্যাশন যেকোনো ট্রেন্ড-ই শুরু হয় বলিউড সেলিব্রিটিদের হাত ধরে। বলিউডে এমন অনেক নায়িকা আছে যাঁদের দেখে মনে হয় তাঁদের বয়স যেন একটা সময়ের পর থেমে গেছে। তাঁদের বয়স পঞ্চাশের বেশি হয়ে গেলেও তাঁদের লুকস, ফ্যাশন সেন্স দেখে আপনি তা বুঝতেও পারবেন না। আজ আমরা তেমনই কিছু অভিনেত্রীদের নিয়ে কথা বলব।

নীনা গুপ্তা- এক সময়ে বলিউডে বেশ নামকরা অভিনেত্রী ছিলেন নীনা গুপ্তা। কিছু সময়ের জন্য বলিউডের এই জগৎ থেকে দূরে থাকলেও “বাধাই হো” সিনেমার মধ্যে দিয়ে তিনি কামব্যাক করেন। ৬১ বর্ষীয় নীনা গুপ্তা তাঁর স্টাইল আর বোল্ড স্টেটমেন্ট এর জন্য সর্বদা ট্রেন্ডে থাকেন, বিতর্কে থাকেন।

তাব্বু- ৫০ বছরের এই অভিনেত্রী কেরিয়ারের শুরু থেকেই নিজের অভিনয়ের মাধ্যমে বহু মানুষের মন জিতেছেন। তিনি না কেবল নিজের রোল নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করেন, পাশাপাশি নিজের লুকস নিয়েও বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করে থাকেন। ট্রাডিশনাল হোক বা ওয়েস্টার্ন সবেতেই তাব্বু তাঁর অনুগামীদের প্রশংসা পেয়ে থাকেন।

মাধুরী দিক্ষিত- বলিউডের ধক্-ধক্ গার্ল মাধুরী দিক্ষিতের লোকপ্রিয়তা আজও ৯০ এর দশকের মতোই বিদ্যমান। তাঁর স্টাইল আর লুকসের মাধ্যমে বর্তমানের হিরোইনদের টক্কর দিয়ে থাকেন। তাঁর প্রতিটি লুকস্ই ভাইরাল হয়ে যায় মুহুর্তে।

ভাগ্যশ্রী- “ম্যানে পিয়ার কিয়া” ফিল্ম থেকে পপুলার হয় অভিনেত্রী ভাগ্যশ্রী। যদিও এরপর তাঁকে আর তেমন বেশি কোনো ফিল্মে দেখা যায় নি। ভাগ্যশ্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় ভীষণ এক্টিভ। তাঁর ওয়েস্টার্ন লুকস্ এর ছবি নেট-নাগরিকদের আকর্ষিত করে। যদিও ৫১ বছরের হয়ে গেছেন ভাগ্যশ্রী কিন্তু তাঁকে দেখে বোঝার উপায় নেই।

রেখা- বলিউডে স্টাইলের কথা বলা হবে আর রেখার নাম আসবে না তা অসম্ভব। ৬৬ বছরের রেখাকে দেখলে তাঁর বয়স বোঝা যায় না। তাঁর মতো ট্রাডিশনাল লুক ক্যারি এখনকার হিরোইন -রাও করতে পারে না। তিনি বহু ফ্যাশনস্টা’র অনুপ্রেরণা। তিনি তাঁর সময়ে অভিনয়ের জন্য যত বিখ্যাত ছিলেন আজ তাঁর স্টাইলের জন্য ততোধিক প্রশংসা পেয়ে থাকেন।।

About Web Desk

Check Also

দিব্যা ভারতীর জীবনে ছিল অনেক গোপন কাহিনী, জেনেনিন কি হয়েছিল 5 এপ্রিল 1993 এর রাতে

অভিনেত্রী দিব্যা ভারতীর নাম শুনলেই এক মিষ্টি মুখের মেয়ের কথা মনে পড়ে। খুব অল্প বয়সেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *