Breaking News

অনাথ মেয়েটি একদিন রাখী পড়িয়ে ছিলেন এই ইন্সপেক্টর কে, অফিসার এই ভাবেই রাখির দায়িত্ব পালন করলেন..

পুলিশ কে নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে ভীতি দেখা যায়। আবার অনেক সময় পুলিশের তৎপরতার কারণে সাধারণ মানুষের মনও জয় করে নেন কিছু পুলিশ। কিছু কিছু সময় কিছু পুলিশ এমন কিছু করেন যার কারণে তাঁদের প্রতিচ্ছবি সাধারণ মানুষের কাছে নষ্ট হয়ে যায়। পুলিশকে মানুষের রক্ষক বলা হয়ে থাকে। পুলিশের কর্তব্যই হয় যেকোনো পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের সাহায্য করা।

এমনই একজন হলেন হনুমান তিবারি। তিনি না শুধু মানুষের সাহায্য করেন, তিনি মানুষকে নতুন জীবন দেওয়ার চেষ্টা করেন। উত্তর প্রদেশের লখীমপুর কসবার সিকেন্দ্রাবাদের বাসিন্দা বিচল ত্রিবেদী মারা গেলে তাঁর পরিবারের অবস্থা খুব দুঃখজনক হয়ে যায়। এমন সময় এই পরিবারের পাশে এসে দাঁড়ান হনুমান লাল তিবারী।

যিনি না কেবল বিচল ত্রিবেদীর মেয়েকে বোন ভেবে রাখি পরেন পাশাপাশি তাঁর বিয়ের সমস্ত দায়িত্ব নিয়ে নেন। এরপর হনুমান তিবারীর পদোন্নতি হলেও তিনি তাঁর দেওয়া কথা ভোলেন না। তিনি ত্রিবেদী পরিবারের থেকে সহমত নিয়ে অনিতার বিয়ে খুব ধুমধাম করে দেন। বিচল ত্রিবেদীর স্ত্রী এর কথা মতে হনুমান তিবারী ছেলে হওয়ার সমস্ত কর্তব্য পালন করেছেন।

বিচল ত্রিবেদীর একটি ছেলে থাকলেও সে ছোটো।
বলে দিই এমন উপকার তিনি প্রথমবার করেননি।
তিনি বরাবরই পরোপকারী। কিছু সময় আগেই তিনি জঙ্গলের আশেপাশে এক মহিলাকে ঘোরা ফেরা করতে দেখে তাঁর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কিছু ভালো ভাবে বলতে পারেন না। তাই তিনি নিজের চেষ্টায় সেই মহিলার পরিবারের সদস্যদের খোঁজ করে মহিলাটিকে পরিবারের কাছে পৌঁছে দেন। এমন পুলিশ কর্মী আমাদের দেশের গর্ব।।

About Web Desk

Check Also

“পুষ্পা” ফিল্মের রক্ত চন্দন এর দাম জানেন কত? বিলুপ্ত এই চন্দন কীভাবে এল ফিল্মের সেটে? জানলে আপনিও চমকে যাবেন

সম্প্রতি রিলিজ হয়েছে আল্লু আর্জুনের ফিল্ম “পুষ্পা”। এই ফিল্ম রক্ত চন্দনের কাঠ নিয়ে তৈরি। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.