Breaking News

ফ্লপ কেরিয়ারের পরও ভালো ইনকাম করেন এই অভিনেতা। দ্বিতীয় বার বিয়ে করেন তিনি!

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এমন এক জায়গা যেখানে কখন কার কেরিয়ার আকাশ স্পর্শ করে আর কখন কার কেরিয়ার ফ্লপ হয়ে যায় বলা মুশকিল। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে রোজ নতুন নতুন মুখ সামনে আসে। যার মধ্যে কেউ কেউ জনপ্রিয়তা লাভ করে, আবার কেউ ভীড়ে হারিয়ে যায়। এই ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক সময় কেরিয়ারের শুরুর দিকে লোকপ্রিয়তা লাভ করলেও হঠাৎ কেরিয়ার ফ্লপও হয়ে যায় অনেকের।

এমনই এক বলিউড সেলেব -এর কথা আপনাদের জানাব। আজ আমরা বলব আফতাব শিবদাসানির কথা। “মাস্তি”, “গ্র্যান্ড মাস্তি”, “কসুর” এর মতো সিনেমায় অভিনয় করেছেন আফতাব। আফতাবের জন্ম হয় ২৫শে জুন ১৯৭৮ সালে। এবছর তিনি ৪৩ তম জন্মদিন পালন করলেন।

আফতাব শিবদাসানি পড়াশোনা শুরু করেন সেন্ট জেভিয়ার্স হাই স্কুল লোকমান্য তিলক মুম্বাই থেকে। এরপর তিনি গ্র্যাজুয়েশন পাশ করেন এইচ.আর কলেজ অব কমার্স থেকে। আফতাব শিবদাসানি “মিস্টার ইন্ডিয়া” ফিল্মে চাইল্ড আর্টিস্ট এর মাধ্যমে নিজের কেরিয়ারের সূচনা করেন। মুখ্য অভিনেতা হিসেবে তিনি কাজ শুরু করেন “মাস্ত” ফিল্মের মধ্যে দিয়ে।

আফতাব শেহেনসা, চালবাজ, ইনসানিয়াতের মতো ফিল্মে কাজ করেছেন। ১৯৯৯ সালে মাত্র ১৯ বছর বয়সে আফতাব রাম গোপাল ভার্মার “মাস্ত” ফিল্মের মধ্যে দিয়ে কেরিয়ার শুরুর পর নির্দেশক বিক্রম ভট্টের ফিল্মেও কাজ করেন। আফতাব “লাভ কে লিয়ে কুছ ভী কারেগা”, “পিয়ার ইস্ক অর মহব্বত”, “কোই মেরে দিল সে পুছো”, “আওয়ারা পাগাল দিবানা” র মতো ফিল্মে কাজ করলেও,

যখন দেখেন তাঁর একের পর এক ফিল্ম ফ্লপ হচ্ছে, তখন তিনি এডাল্ট কমেডি ফিল্মে অভিনয় করতে শুরু করেন। ফিল্ম কেরিয়ার ফ্লপ হলেও প্রোডাকশন হাউস আর ইভেন্টস্ থেকে তাঁর ভালো মতো রোজগার হয়ে যায়। ২০১২ সালে তাঁর স্ত্রী নিন দুসাঞ্জ এর সাথে আফতাবের এনগেজমেন্ট হয়। এরপর ২০১৪ সালে তাঁরা বিয়ে করেন। আবার ২০১৭ সালে আফতাব তাঁর স্ত্রীকে দ্বিতীয় বার বিয়ে করেন।।

About Web Desk

Check Also

25 বছর ধরে মানুষকে বোকা বানাচ্ছেন অক্ষয় কুমার, এবার বেরিয়ে আসলো আসল তথ্য, বিস্তারিত জেনে নিন…

বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার চমৎকার অভিনয়ের জন্য পরিচিত। অক্ষয় প্রতিটি চরিত্রে ভালো অভিনয় করে এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *