Breaking News

মাসির জেদের কারণে ১৬ বছর বয়সে বিয়ে করতে হয়েছে, ১৮ বছর বয়সে মা হয়েছি.. নিজে মুখেই জানালেন বাঙালি অভিনেত্রী

মৌসুমী চ্যাটার্জী বলিউড ইন্ডাস্ট্রির একটি সুপরিচিত নাম। প্রত্যেকেই এক সময় তার অভিনয়ের পাগল ছিল। শুধু তাই নয় মৌসুমী চ্যাটার্জি বলিউডের এমনই এক অভিনেত্রী হিসেবে গণ্য হন যিনি রোমান্টিক এবং আশির দশকে তার রোমান্টিক অভিনয় দিয়ে দর্শকের ওপর আলাদা ছাপ রেখে ছিলেন।

আপনাদের জানিয়ে দিয়েছে যে 1953 সালের 2 -এই এপ্রিল কলকাতায় জন্মগ্রহণকারী মৌসুমী তার অভিনয় জীবন শুরু করেছিলেন। 1967 সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বালিকা বধূ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। তার পারিবারিক পটভূমির দিকে তাকালে তার বাবা প্রাণতোষ চট্টোপাধ্যায় ছিলেন একজন সেনা কর্মকর্তা। মৌসুমির আসল নাম ইন্দিরা চ্যাটার্জী।

পরে তিনি যখন বাংলা ছবিতে অভিনয় শুরু করেছিলেন পরিচালক তরুণ মজুমদার তার নাম পরিবর্তন করে মৌসুমী রেখেছিলেন। মৌসুমী চ্যাটার্জি অর্থাৎ ইন্দিরা চ্যাটার্জী আঙ্গুর, মানজিল, এবং রোটি কাপড়া অর মাকান এর মত হিট ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। মৌসুমী চ্যাটার্জি সম্পর্কে একটি কথা বলা হয়েছে যে তিনি গ্লিসারিন ছাড়াই কান্নার অভিনয় করতেন।

গ্লিসারিন ছাড়াই কান্নার প্রসঙ্গে মৌসুমী একবার কথোপকথনে বলেছিলেন, “হ্যাঁ এটা সত্যি! যখন আমি কোন দৃশ্য কাঁদতাম তখন আমি ভাবতাম যে এটি আমার সাথে সত্যিই ঘটেছে তাই আমার কান্না ভেতর থেকেই পেত।” মৌসুমী চ্যাটার্জি শুধু হিন্দি ছবিতে দুর্দান্ত কাজ করেছিলেন তা নয় তিনি বাংলা সিনেমায় প্রচুর খ্যাতি অর্জন করেছিলেন।

এরপরে তিনি রাজনীতিতে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। জানা গেছে মৌসুমী আগে কংগ্রেস দলের সাথে ছিলেন এখন তিনি বিজেপিতে রয়েছেন। মৌসুমী চ্যাটার্জি খুব অল্প বয়সে বিয়ে করেছিলেন এবং সন্তানের মা ও হয়েছিলেন খুব অল্প বয়সে। আসুন আজ আমরা এই অভিনেত্রী কাম রাজনৈতিক ভদ্রমহিলার ব্যক্তিগত জীবনের সাথে সম্পর্কিত কিছু অনাবিষ্কৃত দিক নিয়ে আলোচনা করি।

আসুন আমরা আপনাকে বলি যে কলকাতার বংশোদ্ভূত মৌসুমী চ্যাটার্জি বিয়ের পরে তার চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেছিলেন। দশম শ্রেণীতে পড়াশোনা করার সময় তার বিয়ে হয়ে যায়। তখন তার বয়স ছিল মাত্র 15 বছর। এর অর্থ নাবালক অবস্থায় তার বিয়ে হয় এবং শুধু তাই নয় 18 বছর বয়সের আগেই মৌসুমী চ্যাটার্জি মা হয়ে যায়।

তিনি যখন গর্ভবতী ছিলেন তখন তিনি দুর্ঘটনার শিকার হয়েছিলেন। এটি উল্লেখ করা যেতে পারে মৌসুমী যখন গর্ভবতী ছিলেন তখন তিনি রোটি কাপড়া অর মাকান ছবিতেও কাজ করেছেন। এই ছবিতে মৌসুমী চ্যাটার্জীর উপরে চিত্রিত ধর্ষণের দৃশ্যটি বেশ আলোচিত হয়েছিল। এই দৃশ্য চিত্র গ্রহণের সময় মৌসুমী চ্যাটার্জি কে প্রচুর পরিমাণে খাটতে হয়েছিল।

যার কারণে তার রক্তক্ষরণ শুরু হয় এবং মৌসুমী ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন যে তার সম্ভাবত গর্ভপাত হয়েছে এবং যার পরে সে কান্নাকাটি শুরু করে। তাকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ভালো কথা এটাই যে দুর্ঘটনার পরও তিনি এবং তার গর্ভের শিশু দুজনেই নিরাপদে ছিলেন। নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে মৌসুমী চ্যাটার্জি একবার বলেছিলেন একজন ভালো স্বামী এবং কন্যা সন্তান পেয়ে তিনি খুব ভাগ্যবান।

শশুর হেমন্ত কুমার কখনোই তাকে মুম্বাইতে অনুভব করতে দেননি যে তার বাবা মা নেই। সে নিজের টাকা দিয়ে একটি মারসেডিস গাড়ি ও কিনেছিলেন। 18 বছর বয়সে তিনি একটি কন্যা সন্তানের মা হন। তথ্যের জন্য আপনাদের জানিয়ে দি যে 2004 সালে মৌসুমী চ্যাটার্জি কংগ্রেসের টিকিটে লোকসভা নির্বাচন করেছিলেন তবে পরাজয়ের মুখোমুখি হয়েছিলেন তিনি।

এর পরে দীর্ঘ সময় সক্রিয় রাজনীতি থেকে দূরে থাকেন তিনি এবং এরপরে 2019 সালে কৈলাশ বিজয় বর্গী এর নেতৃত্বে তিনি বিজেপিতে যোগদান করেন। একই সাথে এটি জানিয়ে দেওয়া উচিত যে মৌসুমী চ্যাটার্জি এত অল্প বয়সে বিয়ে করতে চাননি। মৌসুমী চ্যাটার্জি আরো পড়াশোনা করতে চেয়ে ছিলেন তবে এমন কিছু ঘটে ছিল যে তার মাসির একগুয়েমির কারণে তাকে বিয়ে করতে হয়েছিল।

হ্যাঁ সেইসময় মৌসুমীর এক মাসি খুব অসুস্থ ছিল। তার বাঁচার কোন আশা ছিল না এবং তার শেষ ইচ্ছা ছিল যে সে মৌসুমীর বিয়ে দেখে যাবে। শেষ পর্যন্ত মাসির একগুঁয়েমির শিকার হয়ে সবাই মাথা নত করে। এমন পরিস্থিতিতে মৌসুমীর পাড়ায় বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী ও গায়ক হেমন্ত কুমারের বাড়ি ছিল তিনি তার পুত্র জয়ন্ত মুখোপাধ্যায়ের সাথে মৌসুমীর বিয়ে দেন।।

About Web Desk

Check Also

দেশের জন্য শহীদ হয়েছেন ছেলে, বাবার চোখে জল নিয়ে শেষবারের মতো স্যালুট জানালেন ছেলেকে…

উত্তরাখণ্ডের বাগেশ্বরে অবস্থিত ত্রিশূল পর্বতে পর্বতারোহণ অভিযানের সময় নৌবাহিনী লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রজনীকান্ত যাদব একটি হিমবাহের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *