Breaking News

ডালিম বা বেদানার খোসা ফেলে দিয়ে ভুল করবেন, এইভাবে ত্বকে লাগালে দুদিনে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে।

ডালিম ফল স্বাস্থ্যের পক্ষে খুব ভালো বলে বিবেচিত হয় এবং এই ফলটি খেলে দেহে রক্তের অভাব হয় না। শুধু তাই নয় ডালিমের খোসাও স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী বলে বিবেচিত হয়। ডালিমের খোসা সেবন করলে শরীরে অগণিত উপকার পাওয়া যায় এবং অনেক রোগ নিরাময় হয়। তাই পরের বার ডালিমের খোসা ফেলে দেওয়ার পরিবর্তে সেগুলি খেয়ে ফেলুন।

আসুন জেনেনি ডালিমের খোসার উপকারিতা। পিরিয়ডের সময় অনেক মহিলা অসহনীয় ব্যথা অনুভব করেন। এই ব্যথা হওয়ার সময় যদি ডালিমের খোসা খাওয়া যায় তবে ব্যথা উপশম হয়। এই প্রতিকারের জন্য প্রথমে ডালিমের খোসা রোদে শুকিয়ে নিন এবং তারপরে এগুলোকে পিসে তাদের গুঁড়ো প্রস্তুত করুন। এই গুড়ো টি একটি কৌটোতে ভরে রাখুন।

যখনই পিরিয়ডের সময় ব্যাথা হবে এক গ্লাস গরম জলে এক চামচ ডালিমের গুঁড়ো মিশিয়ে খেয়ে নিন তাৎক্ষণিক স্বস্তি পাবেন। ডালিমের খোসা মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। মুখে দুর্গন্ধ থাকলে এর গুঁড়ো জলের সাথে মিশিয়ে পান করুন। কাশির ক্ষেত্রে ডালিমের খোসা নিন। ডালিমের খোসা গুড়ো খেলে কাশি বন্ধ হয়ে যায়।

এছাড়াও গলার ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন আপনি। ডালিমের খোসা হাড়কে শক্তিশালী করতে সহায়ক। ডালিমের খোসা গুড়ো খেলে দাঁত এবং হাড় মজবুত হয়। ডালিমের খোসা বলিরেখা দূর করতে সহায়ক। বাটিতে এক চামচ ডালিমের খোসা গুঁড়ো নিন। তারপর এতে গোলাপ জল যোগ করুন। ভাল করে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। তারপরে এই পেস্টটি ভাল করে মুখে এবং ঘাড়ে লাগান।

শুকিয়ে যাওয়ার পরে জল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন এবং এটি সপ্তাহে তিনবার ব্যবহার করুন। ডালিমের খোসা রোদের ট্যানিং এর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সহায়ক। ডালিমের খোসার পেস্ট লাগিয়ে সান ট্যান দূর করা যায়। প্রতিকার হিসেবে জলপাইয়ের তেলের এক চামচ ডালিমের খোসা গুড়ো মেশান‌। তারপর এটি মুখে লাগান এবং হালকা হাতে ঘষুন। কিছুদিনের মধ্যেই আপনি ফারাক বুঝতে পারবেন।।

About Web Desk

Check Also

আগামী 20 শে সেপ্টেম্বর থেকে পিতৃপক্ষ শুরু, এই দিনে এই কাজগুলি করুন টাকা পয়সার অভাব হবে না, সুখ শান্তি ফিরে আসবে

আগামী মাস থেকে পিতৃপক্ষ শুরু হতে চলেছে। হিন্দু ধর্মে পিতৃপক্ষের বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে এবং এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published.