Breaking News

ধাবার মালিকের সুখের দিন শেষ, বিশাল লোকসানের পরে নতুন রেস্টুরেন্ট বন্ধ করে আবার তার পুরোনো ধাবায় ফিরে এলেন….

গত বছর একটি ধাবার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হয়েছিল। এই ধাবাটির মালিক ছিলেন কান্ত প্রসাদ। ধাবার মালিক কান্ত প্রসাদকে সাহায্য করার জন্য, প্রত্যেকে তার ধাবাতে খাবার খেতে লাইনে দাড়াতো এবং এর পাশাপাশি বহু লোক তাকে অর্থ দান করেও সাহায্য করতো।

আর সেই টাকা দিয়ে তিনি একটি রেস্টুরেন্ট খুলেছিলেন, কিন্তু এখন শোনা যাচ্ছে যে, তার সেই রেস্টুরেন্টটি লকডাউনের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। তাই তিনি আবার তার পুরোনো ধাবায় ফিরে এসেছেন। কান্ত প্রসাদের রেস্টুরেন্টটি ফেব্রুয়ারীতেই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তাই সে এখন তার পুরোনো ধাবাটিতেই ফিরে এসেছে।

তবে এখন আর তার আগের মত রোজগার হয় না। যেমনটা আপনি জানেন যে, গত বছর তার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরে তার উপার্জন দশ গুণ বেড়ে গিয়েছিল। তিনি বলেছেন যে, দিল্লিতে করোনার জন্য তার পুরোনো ধাবাটিকে 17 দিনের জন্য বন্ধ রাখতে হয়েছিল এবং এটি তার ওপর খুব খারাপ প্রভাব ফেলেছিল।

এর ফলে, তাকে আবার দরিদ্রতার মুখোমুখি হতে হয়েছিল। কান্ত প্রসাদ বলেছিলেন যে, তার ধাবাতে কোভিড লকডাউনের কারণে, প্রতিদিনের বিক্রির হার ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছিল। লকডাউনের আগে তার দৈনিক বিক্রয় ছিল 3500 টাকা। আর এখন সেটা নেমে এসে 1000 টাকায় দাঁড়িয়েছে।

এটা তার পরিবারের পক্ষে যথেষ্ট ছিল না। কান্ত প্রসাদ গত বছরের ডিসেম্বর মাসেই তার রেস্টুরেন্টটি চালু করেছিলেন। যেখানে তিনি নজরদারি করতেন এবং তার স্ত্রী ও দুই ছেলে কাউন্টারে বসে অর্থ গ্রহণ করতেন। এই রেস্টুরেন্টে দুজন শেফ এবং ওয়েটারকে, গ্রাহকদের সেবা দেওয়ার জন্য নিযুক্ত করা হয়েছিল।

কিছু সময় পরে রেস্টুরেন্টে গ্রাহকের সংখ্যা কমে আসতে শুরু করে, এর ফলে রেস্টুরেন্টের খরচ বাড়তে শুরু করে। তিনি বলেছিলেন যে, এই রেস্টুরেন্টে তিনি 5 লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন। এবং তিনজনকে মাইনা দিয়ে এই রেষ্টুরেন্টের কাজের জন্য রেখেছিলেন। এই রেস্টুরেন্টটির মাসিক ব্যয় ছিল প্রায় 1 লাখ 35 হাজার টাকার কাছাকাছি।

তিন কর্মচারীর বেতনের জন্য 36,000 টাকা ব্যয় হত। 15,000 টাকা রেশন, বিদ্যুৎ ও জলের জন্য যেত। তবে তাদের মাসিক বিক্রয় কখনোই 40,000 টাকা ছাড়িয়ে যেত না। সুতরাং, এক্ষেত্রে তার লোকসানই হচ্ছিল।

তাকে সাহায্য করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় হাতটি ছিল ইউটিউবার গৌরবের, যিনি এই ধাবার ভিডিও শেয়ার করার সময় কান্ত প্রসাদের দুঃখ ও বেদনার কথা বলেছিলেন। তবে আশ্চর্যের বিষয় হল যে, পরে কান্ত প্রসাদ অনুদানের অর্থ অপব্যবহার এবং প্রতারণার অভিযোগ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে দায়ের করেছিলেন।।

About Web Desk

Check Also

বিস্ময়কর ঘটনা: ৪ হাত-পা ওয়ালা শিশু জন্ম নিতেই গ্রামে ঘটে গেলো এই ঘটনা!

প্রকৃতির এক অনন্য রূপ দেখা গেলো সোমবার বিহারের কাটিহার সদর হাসপাতালে। যেখানে চার হাত-পা বিশিষ্ট …

Leave a Reply

Your email address will not be published.