Breaking News

হলদিরাম এক ছোট নাস্তার দোকান ছিল, এখন ভারতের সবচেয়ে বড় জনপ্রিয় ব্র্যান্ড তৈরি হয়ে গেছে, কিভাবে হল জেনেনিন সফলতার গল্প

আপনারা অবশ্যই হলদিরামের আলুর ভুজিয়া বা মিষ্টির স্বাদ গ্রহণ করেছেন, যা আজ ভারতের একটি বিখ্যাত ব্র্যান্ড হয়ে উঠেছে। আপনারা কি জানেন, হলদিরাম কিভাবে শূন্য থেকে তাদের যাত্রা শুরু করে আজকের এই প্রতিষ্ঠানে পৌঁছেছে? যদি না জেনে থাকেন, তাহলে আজকে জেনে নিন। আজ আমরা আপনাদেরকে ভারতের সর্বাধিক বিখ্যাত ব্র্যান্ড এই হলদিরামের সাফল্যের গল্পই বলবো।

ভারতে হলদিরাম ব্র্যান্ডের ইতিহাস আজ বা কালের নয়, স্বাধীনতার চেয়েও বহু পুরনো। এই ব্র্যান্ডটিকে 1937 সালে বিকানে স্থাপন করা হয়েছিল, প্রায় 79 বছর আগে। যদিও সেই সময় এটিকে একটি ছোট্ট খাবারের দোকান হিসেবে খোলা হয়েছিল। গঙ্গা ভীশেন আগারওয়াল, এই ছোট্ট দোকানটির মধ্যে দিয়ে ব্যবসার দিকে যেতে চেয়েছিলেন।

এরপর, কিছুদিনের মধ্যেই তিনি বিকানের একজন ভুজিয়াওয়ালা নামে খ্যাতি লাভ করেছিলেন। তারপরই, তিনি তার দোকানটির নাম হলদিরাম রেখেছিলেন। আসলে এই ‘হলদিরাম’ নামটি তারই অপর নাম ছিল। এমন পরিস্থিতিতে ঘরে ঘরে তার দোকানের কথা পৌঁছে দেওয়ার জন্য তিনি এই দোকানটির নাম হলদিরাম রেখেছিলেন। এই হলদিরাম পুরো বিকান জুড়ে আলুর ভুজিয়া সহ অন্যান্য ধরনের স্ন্যাকসের ব্যবসা শুরু করেছিল।

এরপরেই তার ব্র্যান্ডটি সারাদেশে আলোচিত হতে শুরু করে। হলদিরাম একটি বিখ্যাত দোকান এবং ব্র্যান্ড হিসেবে বিখ্যাত হয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতে ব্যবসার প্রসারের জন্য হলদিরাম দিল্লি সহ দেশের বিভিন্ন রাজ্যে আউটলেটগুলিতে ভিত্তি স্থাপন করে। এভাবেই হলদিরাম বিকানের থেকে দিল্লিতে গিয়েছিল, যা কয়েক বছর পরে আমেরিকাতেও পৌঁছেছিল।

হলদিরাম সংস্থা পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় প্রথম উৎপাদন শুরু করে। এরপর 1970 সালে জয়পুরে এবং 1982 সালে দেশের রাজধানীতে হলদিরাম তার পণ্য বিক্রি করা শুরু করে। এইভাবে, মাত্র কয়েক বছর ব্যবসা করার পরেই, 2003 সালে হলদিরাম তার পণ্য আমেরিকাতেও রপ্তানি করা শুরু করে। যার কারণে হলদিরাম লাভের পাশাপাশি প্রচুর নামও অর্জন করেছিল।

বর্তমানে হলদিরামে 100 টিরও বেশি বিভিন্ন ধরনের পণ্য উৎপাদন করা হয়, যা বিশ্বজুড়ে 80 টিরও বেশি দেশে রপ্তানি করা হয়। হলদিরাম কেবল জাতীয় পর্যায়ে নয় আন্তর্জাতিক স্তরেও তার পণ্যের মাধ্যমে জনগণের চায়ের স্বাদ বাড়ানোর কাজটিও করেছিল। 2013 থেকে 2014 সালের মধ্যে উত্তর ভারতে হলদিরামের মোট উপার্জন ছিল 2100 কোটি টাকা।

এছাড়া পশ্চিম ও দক্ষিণ ভারতে হলদিরামের পণ্যগুলির বার্ষিক বিক্রয় ছিল 1225 কোটি টাকা এবং পূর্ব ভারতে হলদিরামের মোট লাভ ছিল 210 কোটি টাকা। 2019 সালে হলদিরামের মোট আয় ছিল 7,130 কোটি টাকা অর্থাৎ 1.0 বিলিয়ন ডলার। এর থেকে অনুমান করা যায় যে, হলদিরাম পুরো ভারতে জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছিল।

হলদিরাম তার পণ্য তৈরীর জন্য বছরে 3.8 বিলিয়ন লিটার দুধ, 80 বিলিয়ন কেজি মাখন, 62 মিলিয়ন কেজি আলু, 60 মিলিয়ন কেজি দেশি ঘি কিনতেন। হলদিরাম গ্রাহকদেরকে খুব কম দামে ভালো মানের খাবার সরবরাহ করতেন। আজ হলদিরাম ভারতের একটি অন্যতম বিখ্যাত ব্র্যান্ড হয়ে উঠেছে। যার আলুর ভুজিয়া বা মিষ্টির স্বাদ আপনারা অবশ্যই পেয়েছেন।।

About Web Desk

Check Also

দিব্যা ভারতীর জীবনে ছিল অনেক গোপন কাহিনী, জেনেনিন কি হয়েছিল 5 এপ্রিল 1993 এর রাতে

অভিনেত্রী দিব্যা ভারতীর নাম শুনলেই এক মিষ্টি মুখের মেয়ের কথা মনে পড়ে। খুব অল্প বয়সেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *