Breaking News

“পেঁপে আইস কিউব” বানিয়ে মুখে লাগালে, দুদিনের চেহারার উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে, জেনে নিন কিভাবে বানাবেন

পেঁপে ব্যবহার করে, মাত্র 15 মিনিটের মধ্যেই মুখে উজ্জ্বল ভাব আনা যায়। এই পেঁপের ব্যবহারে, ত্বক আরও সুন্দর এবং উজ্জ্বল হয়ে ওঠে। গ্রীষ্মকালে সূর্যের রোদে বেশিক্ষণ থাকলে ত্বকের রং কালো হয়ে যায় এবং মুখ ঘামে চটচটে হয়ে যায়। এই সমস্যার সমাধানের জন্য আপনি পেঁপের ice cube-এর ব্যবহার করতে পারেন। এটি ব্যবহারের সাথে সাথেই আপনি ত্বকের চটচটে ভাব থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন। এই পেঁপের ice cube বানানোর জন্য প্রথমে, পেঁপে টুকরো টুকরো করে কেটে একটি পেস্ট বানাতে হবে।

তারপর এটিতে 3 চামচ গোলাপ জল, 2 চামচ মধু এবং 2 চিমটি হলুদ দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। তারপর সেটিকে বরফের ট্রেতে ভর্তি করে কিছুক্ষণের জন্য ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। এরপর পেঁপের আইস কিউব জমে গেলে, ফ্রিজের থেকে বের করে নিতে হবে। তারপর সেটিকে একটি সুতির কাপড়ে রেখে ভালো করে পুরো মুখে লাগাতে হবে। এটির নিয়মিত ব্যবহারে আপনার ত্বক সোনার মতো আভা পেতে শুরু করবে। এই আইস কিউবের পরিবর্তে আপনি পেঁপের ফেস প্যাকটিও ব্যবহার করতে পারেন।

এই ফেস প্যাকটি বানানোর জন্য প্রথমে, পেঁপে টুকরো টুকরো করে কেটে একটি পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। তারপর এটিতে 1 চামচ ছোলা ময়দা, 1 চামচ চন্দন কাঠের গুঁড়ো, 1/2 চামচ মধু, 1/2 চামচ অ্যালোভেরা জেল এবং 1/2 চামচ গোলাপজল দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। এরপরে এই মিশ্রনটিকে মুখে লাগিয়ে 25 মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে। তারপরে, এটি শুকিয়ে গেলে বিশুদ্ধ জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এই প্যাকটি সপ্তাহে 5 দিন ব্যবহার করলে, মাত্র 2 সপ্তাহের মধ্যেই আপনার ত্বক উজ্জ্বল এবং আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে।

মুখে শুষ্কভাব দেখা দিলে, পেঁপের গুঁড়ো তৈরি করে তাতে মধু, হলুদ এবং কিছুটা দুধ দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে মুখে লাগাতে হবে। এটি শুকিয়ে গেলে হালকা গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এর ফলে মুখে আদ্রতা আসবে এবং শুষ্কতা দূর হবে। মুখের কালো ভাব দূর করার জন্য পেঁপের মধ্যে অ্যালোভেরা জেল এবং মধু দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে মুখে লাগাতে হবে। এর ফলে মুখের কালো ভাব দূর হবে। সুতরাং এই পেঁপে আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।।

About Web Desk

Check Also

টানা এক বছর আপনার বাড়িঘর মশামুক্ত রাখতে খরচ করুন মাত্র ৫ টাকা, এটি দারুণ কার্যকরী টিপস জেনে নিন!

অনেক সময়ই বাড়িতে মশার উপদ্রব বেড়ে যায়। বিশেষ করে বর্ষার সময় জমা জলে মশা বেশি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *