Breaking News

স্কুলে বাবা ছিলেন পিয়ন, মেয়ে 19 বছর বয়সে মাকে হারিয়েও আজ আইপিএস অফিসার

কোন ব্যক্তি যদি সত্যি কারের আবেগ এবং কঠোর পরিশ্রম করার মনোভাব নিয়ে কোন কাজ করে তবে সাফল্য খুব শীঘ্রই তার দোড়গোড়ায় এসে উপস্থিত হয়। এরকম অনেক উদাহরন আমরা আমাদের চারপাশে দেখতে পাই। যেখানে লোকেরা সত্যিকারের নিষ্ঠা এবং কঠোর পরিশ্রমের দ্বারা কঠিন পরিস্থিতিতেও সাফল্য অর্জন করছে।

আজ আমরা আমাদের এই নিবন্ধে এমন একজন ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে বলবো যিনি আর্থিক সীমাবদ্ধতা ও সুযোগ সুবিধার অভাব সত্বেও আইপিএস অফিসার হয়েছেন। আমরা কথা বলছি 2018 সালের ব্যাচের আইপিএস অফিসার ডক্টর বিশাখাকে নিয়ে। যিনি তাঁর দারিদ্রতাকে সাফল্যের ধারে কাছে আসতে দেয়নি। বিশাখা নাসিকের বাসিন্দা। তার বাবার নাম অশোক ভাদানে, পেশায় তিনি একজন স্কুলের পিয়ন ছিলেন।

বিশাখারা দুই বোন এবং এক ভাই। পরিবারের দারিদ্রতা এতটাই ছিল যে বাবার উপার্জনে পরিবারের খরচ চলতো না তাই তাদের মা একটি দোকান খুলেছিলেন। তাদের বাবা-মা সর্বদা চেয়েছিলেন তাদের ছেলেমেয়েরা যাতে পড়াশোনা করে নিজের জীবনকে সফল করে তোলে। এই কারণে আয় কম হওয়া সত্বেও তার সন্তানদের পড়াশোনায় কোন কমতি রাখেননি।

এতকিছুর পরেও বাবা মায়ের পক্ষে বাচ্চাদের পড়াশোনা এবং বইয়ের খরচ মেটানো খুবই কষ্টসাধ্য ব্যাপার ছিল। স্কুলে যখন ছুটি থাকত তখন তিন ভাইবোন লাইব্রেরীতে পড়াশোনা করতে যেত। শিক্ষকরা তাদের পড়াশোনার প্রতি এত আগ্রহ দেখে তাদের পড়াশোনার সমস্ত দায়িত্ব নিজেরা নিয়েছিল। বিশাখার বয়স যখন 19 বছর তার পরিবারে একটি বড় দুর্ঘটনা ঘটে। মাত্র 19 বছর বয়সে মাকে হারান বিশাখা এবং তারপর থেকেই পারিবারিক দায়িত্ব চলে আসে বিশাখার কাঁধে।

পড়াশোনার প্রতি প্রবল আগ্রহের কারণে তাদের কোনো প্রবেশিকা পরীক্ষার সময় অসুবিধা হয়নি। বিশাখা ও তার ভাই সরকারি আয়ুর্বেদ কলেজ থেকে বিএএমএস এ ভর্তির জন্য পরীক্ষা দিয়েছিল এবং দুজনে সফলভাবে উত্তীর্ণ হয়েছিল। এরপরে ডাক্তার বিশাখা ইউপিএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ভাবেন এবং এর জন্য প্রস্তুতি শুরু করেন। যাই হোক তিনি তার প্রথম প্রয়াসে ব্যর্থতা পেলেও দ্বিতীয় প্রয়াসে 2018 সালে ইউপিএসসি পাস করেন এবং আইপিএস অফিসার হন।।

About Web Desk

Check Also

দেশের জন্য শহীদ হয়েছেন ছেলে, বাবার চোখে জল নিয়ে শেষবারের মতো স্যালুট জানালেন ছেলেকে…

উত্তরাখণ্ডের বাগেশ্বরে অবস্থিত ত্রিশূল পর্বতে পর্বতারোহণ অভিযানের সময় নৌবাহিনী লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রজনীকান্ত যাদব একটি হিমবাহের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *